বুধ. ফেব্রু ২১, ২০২৪

শরনখোলা প্রতিনিধি:: বাগেরহাটের শরণখোলার উপজলা খোন্তাকাটা ইউনিয়নের পশ্চিম রাজৈর গ্রামের নাম পরিবর্তন করে মাদানী নগর রাখছিলো স্থানীয় জামাতের একটি চক্র। এনিয়ে এলাকাবাসীর মধ্য বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। সচেতন মহলের পক্ষ থেকে এর প্রতিবাদ জানালে শনিবার (৪ জুলাই) দুপুরে এ ষড়যন্ত্রের নাম মুছে দেয় শরণখালার উপজেলা প্রশাসন।
স্থানীয়রা জানান, রাজাকার বাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা জামায়াতের সাবেক কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর মাওলানা এক এম ইউসুফ এর বাড়ি উপজেলার পশ্চিম রাজৈর গ্রামে। এ কারণে ওই গ্রামে দীর্ঘ বছর ধরে ঘাটি তৈরী করে জামায়াত। সম্প্রতি গ্রামটির এক কিলামিটারের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় মাদানী নগর নাম দিয়ে প্রচারণা চালায় জামায়াতর একটি চক্র।
স্থানীয়রা বলেন, ওই গ্রামের খালেক আকনের পুত্র শিবির নেতা রফিক আকন উঠতি বয়সের কতিপয় যুবককে ধর্মীয় অনুভুতি দিয়ে একত্রিত করে। এরপর গ্রামের নাম পশ্চিম রাজৈর পরিবর্তন করতে সওজ বিভাগের মাইল ফলক, ব্রিজসহ বিভিন্ন পিলারের গায়ে মাদানী নগর লিখে দেয়। এরপর তারা বিভিন্ন ফেইসবুক মেসেঞ্জারে ওই গ্রামের নাম মাদানী নগর করা হয়েছে বলে প্রচারণা চালায়। বিষয়টি নিয়ে গ্রামবাসী বিভ্রান্তিতে পড়েন। সচেতন মহল ও স্থানীয় সাংবাদিকরা এ ঘটনার প্রতিবাদ জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শিবির নেতা রফিক সাংবাদিকদের বিষোদগার করেন। ঘটনাটি বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ, উপজলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন ও শরণখোলা থানার অফিসার ইন চার্জ এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদকে জানালে শনিবার সকাল তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে মাদানী নগর লেখা মুছে ফেলেন। এসময় স্থানীয়রা শিবির নেতা রফিকের শাস্তি দাবী করেন।
এব্যাপারে শরণখালার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, একটি স্থান বা গ্রামের নাম পরিবর্তন করা চরম অপরাধ। এটা দেশোদ্রোহীতার সামিল। নজরে আসায় তাদের দেয়া ষড়যন্ত্রের নাম মুছে ফেলা হয়েছে। এর সাথে জড়িত ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *