শনি. জুন ২২, ২০২৪

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

বাগেরহাটের মোল্লাহাটে চাচার বিরুদ্ধে ভাতিজির জমি দখল করে ভবন নির্মানের অভিযোগ উঠেছে।মোল্লাহাট উপজেলা সদরের বাজার সংলগ্ন মৃত শেখ রেজাউল করিমের মেয়ে ফাহমিনা করিম তার আপন চাচা শেখ ফয়জুল করিমের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেছেন।ফাহমিনা করিম বলেন, আমার দাদা শেখ আব্দুল লতিফের চার বোন ও দুই ছেলে আমার বাবা শেখ রেজাউল করিম এবং চাচা শেখ ফয়জুল করিম পিন্টু।আমরা তিন বোন পেশাগত কারণে এলfকায় থাকি না।আমার বাবা মৃত্যুবরণ করার পর থেকে আমার চাচা আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি জোর দখল করে নেওয়ার চেষ্টা করে।আমাদের বিভিন্ন জমি দখল করে নেয় ।আমরা নায্য পাওনা বুঝে পেতে ২০১৯ সালে বাগেরহাট আদালতে বাটোয়ারা মামলা করি(মামলা নং ৮৪/১৯)। এরপরে আমার চাচা শেখ ফয়জুল করিম পিন্টু বাজার সংলগ্ন ৩৭ শতক জমির উপর ভবন নির্মানের চেষ্টা করেন।পরবর্তীতে আমরা উচ্চ আদালতে আবেদন করলে চলতি বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারী আদালত ওই জমিতে কোন প্রকার কাজ না করার জন্য ৬ মাসের নিষেদ্ধাজ্ঞা জারি করেন।এই নিষেধাজ্ঞা গত ২৫ আগস্ট পর্যন্ত বলবত ছিল। কিন্তু এর আগেই ১১ আগস্ট দেওয়া সুপ্রিম কোর্টের এক বিজ্ঞপ্তি আদালতের অধীনে দেওয়া সকল প্রকার আদেশের সময়সীমা বর্ধিত করণের আদেশ দেন।যার ফলে আমাদের জমিতে দেওয়া নিষেধাজ্ঞা এখনও বলবত রয়েছে বলে দাবি করেন ফাহমিনা করিম। কিন্তু আমার চাচা একজন লোভী প্রকৃতির লোক হওয়ায়  বুধবার (২৬ আগস্ট) থেকেই অতিরিক্ত শ্রমিক নিয়ে ওই ভবন নির্মান কাজ শুরু করেন। আমি আমার জমি রক্ষার স্বার্থে পুলিশের দারস্থ হয়েছি। আমার দাবি যতদিন পর্যন্ত আদালত স্বাভাবিক না হবে ততদিনের মধ্যে এই জমিতে কোন প্রকার কাজ করতে পারবেন না।আমার ন্যায্য পাওনা প্রাপ্তির জন্য এই নিষেধাজ্ঞা বলবত রাখার অনুরোধ করছি। তিনি আরও বলেন, উপজেলা সদরের এতিহ্যবাহী আমাদের বাড়িতে প্রবেশের পথ না রেখে চাচা ভবন নির্মান করছেন্। চাচাকে প্রবেশ পথের জন্য অনেক অনুরোধ করা হলেও কিছুতেই শুনছেন না।এব্যাপারে অভিযুক্ত শেখ ফয়জুল করিম পিন্টুর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি মুঠোফোন রিসিভ করেননি।তবে ঘটনাস্থল থেকে তার স্ত্রী রেহেনা পারভীন  বলেন, এই জায়গা আমাদের আমরা ভবন নির্মান করছি। ভবন নির্মান না করার জন্য ফাহমিনা করিম যে নিষেধাজ্ঞা নিয়েছিলেন তার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। তাই আমাদের ভবন নির্মানে আর কোন বাঁধা নেই।

মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ গোলাম কবির বিটিসি নিউজ এর প্রতিবেদককে বলেন, ফাহমিনা করিমের পক্ষে সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মেজবা উদ্দিন সরদার একটি অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি যাচাই বাচাইয়ের জন্য আমরা উভয় পক্ষকে ডেকেছি। তাদের সাথে কথা বলে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *