ফুটবল লীগের প্রথম বিভাগে শেখ কামাল স্মৃতি সংসদ চ্যাম্পিয়ন

USB ডেস্কঃ
  • প্রকাশিত রবিবার, ২১ আগস্ট, ২০২২

ক্রীড়া প্রতিবেদক,
খুলনায় বঙ্গবন্ধু সিনিয়র ডিভিশন ফুটবল লীগের প্রথম বিভাগে শেখ কামাল স্মৃতি সংসদ অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। শেষ ম্যাচে দিঘলিয়া ওয়াইএমএ ক্লাবকে সাকিল ও রেজওয়ানের জোড়া গোলে লীগের সব থেকে বড় স্কোর ৬-০ গোলে হারিয়ে এ গৌরব অর্জন করল শেখ কামাল স্মৃতি সংসদ। অপরদিকে এসবিআলী ফুটবল একাডেমি হয়েছে রানারআপ।
রবিবার (২১ আগস্ট) বিকেল সোয়া ৪টায় খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন খুলনা আয়োজিত এবং বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু সিনিয়র ডিভিশন ফুটবল লীগে দিনের দ্বিতীয় খেলায় তারা ৬-০ গোলের বড় জয় পায় দিঘলিয়া ওয়াইএমএ ক্লাবের বিপক্ষে। দিনের দ্বিতীয় খেলায় এদিন উভয় দলের ছিল এটি শেষ ম্যাচ। সেখানে শেখ কামালের ৫ খেলায় ৩ জয় ও ২ ড্র নিয়ে ১১ পয়েন্ট। পক্ষান্তরে দিঘলিয়ার ছিল সমান সংখ্যাক ম্যাচে ৪ পরাজয় ও ১ ড্র নিয়ে ১ পয়েন্ট। শক্তির দিক থেকে অনেক এগিয়ে থেকে মাঠে নামে শেখ কামাল। শুরুতেই দিঘলিয়া এলোমেলা খেলা শুরু করে। আর এ সুযোগে শেখ কামাল আক্রমনের গতি বাড়িয়ে দেয়। খেলার ১৫ মিনিটের মাথায় শেখ কামালের ১০নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় সাকিল গোল করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যায় (১-০)। গোল হজম করে সমতার আশায় আক্রমন শুরু করে দিঘলিয়া। তবে শেখ কামালের শক্ত রক্ষণভাগ ভেদ করতে পারেনি দিঘলিয়ার স্ট্রাইকাররা। ১৭ মিনিটের সময় শেখ কামালের ১১নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় রেজওয়ান গোল করে দলের স্কোর (২-০) করেন। ২ গোলে এগিয়ে থেকে আরও আক্রমন বাড়িয়ে দেয় শেখ কামাল। ফলে ২১ মিনিটের সময় সাকিল আবারও গোল করে দলের স্কোর (৩-০) করেন। ৩ গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতীতে যায় দিঘলিয়া। বিরতী থেকে ফিরে উভয় দলই আক্রমন-পাল্টা আক্রমন করতে থাকে। সে সময় খেলা চলে মধ্য মাঠে। এরপরও দিঘলিয়া গোল পরিশোধের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে। কিন্তু শক্তিশালী শেখ কামালের সামনে তাদেরকে অসহায় মনে হয়। প্রথমার্ধে যেমন ৩টি গোল হজম করতে হয়েছে দিঘলিয়াকে, তেমনি দ্বিয়াআর্ধেও ৩টি গোল হজম করতে হয়েছে। ৫৬ মিনিটের সময় রেজওয়ান আবারও গোল করে দলের স্কোর (৪-০) করেন। এরপর আরও আক্রমন বাড়িয়ে দেয় শেখ কামাল। ৭০ মিনিটের সময় পেনাল্টি থেকে দলের ৭নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় সুজন গোল করলে দলের স্কোর ৫-০ তে দাঁড়ায়। ৫ গোল দিয়েও ক্ষ্যান্ত হয়নি শেখ কামাল। নির্ধরীত সময়ের শেষ বাঁশি বাজার আগে ৮নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় সাব্বির লীগের সব থেকে বড় স্কোর ৬-০ গোলে পরিণত করেন। এ হারের ফলে ৬ খেলায় ১ পয়েন্ট নিয়ে দিঘলিয়াকে নি¤œায়ীত হতে হবে। খেলাটি পরিচালনা করেন রেফারী মোশাররফ হোসেন, আলী আকবর, জসিম উদ্দিন ও অপুর্ব মল্লিক। ম্যাচ কমিশনার ছিলেন নৃপেন রায় চৌধুরী।

দুপুর আড়াইটায় দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় খুলনা আবাহনী ক্রীড়া চক্র বনাম মহেশ্বপাশা ক্লাব। খেলায় খুলনা আবাহনী ক্রীড়া চক্র ২-১ গোলে মহেশ্বপাশা ক্লাবকে পরাজিত করে। এদিন উভয় দলের ছিল এটি ছিল শেষ ম্যাচ। সেখানে আবাহনীর ছিল ২ জয়, ৩ পরাজয় ও ১ ড্র নিয়ে ৭ পয়েন্ট। পক্ষান্তরে মহেশ্বপাশার ২ জয়, ৩ পরাজয় ও ১ ড্র নিয়ে ৭ পয়েন্ট। শক্তির দিক থেকে উভয় দলই ছিল সমানে সমান।
শুরুতেই উভয় দল গোছানো ফুটবল শুরু করে। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মধ্যে দিয়ে চলতে থাকে খেলা। খেলা দেখে মনে হয় দল দুটি’র শক্তি সমানে সমান। হঠাৎ মহেশ্বপাশা আক্রমনের গতি বাড়িয়ে দেয়। খেলার ২৭ মিনিটের সময় মহেশ্বপাশার ২১নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় হাবিব গোল করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যায় (১-০)। গোল হজম করে পরিশোধের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে আবাহনী। একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে তারা। তবে মহেশ্বপাশার রক্ষণভাগ ভাঙ্গতে ব্যর্থ হয়। পিছিয়ে থেকে বিরতীতে যায় আবাহনী। বিরতী থেকে ফিরে উভয় দলই আক্রমন-পাল্টা আক্রমন করতে থাকে। আক্রমনে এগিয়ে থাকে আবাহনী। যেভাবে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ করতে থাকে, তাতে মনে হয় যে কোন সময় যে কোন দল এগিয়ে যেতে পারে। আর সেটাই হয়েছে। ৬৪ মিনিটের সময় আবাহনীর ২নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় রাব্বি পেনাল্টি থেকে গোল করে খেলায় সমতা আনে (১-১)। গোল পরিশোধ করে আবাহনীর আক্রমন আরও বেড়ে যায়। ফলে ৭৮ মিনিটের সময় আবাহনীর ১৮নং জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় শুভ গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করে (২-১)। খেলাটি পরিচালনা করেন রেফারী নাজমুল ইসলাম, কামাল আহমেদ, জাহিদুজ্জামান ও শহিদুল ইসলাম। ম্যাচ কমিশনার ছিলেন শহিদুল ইসলাম লালু। খেলা দু’টির মনোমুদ্ধকর ধারাভাষ্য ছিলেন এডভোকেট এম এম সাজ্জাদ আলী ও এডভোকেট প্রজেশ রায়।
মাঠে উপস্থিত ছিলেন জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. সাইফুল ইসলাম, খুলনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. সাহেব আলী, ডিএফএ সাধারণ সম্পাদক মো. ইউসুফ আলী, কোষাধ্যক্ষ নুরুল ইসলাম খান কালু, কার্যনির্বাহী সদস্য ও লীগ কমিটির সম্পাদক সুজন আহমেদ ও সদস্য ও লীগ কমিটির সহ-সম্পাদক মনিরুজ্জামান মহসীন। ২২ আগস্ট সোমবার জেলা স্টেডিয়ামে লীগের শেষ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। দিনের একমাত্র ম্যাচে বিকেল ৪টায় মুখোমুখি হবে মোহামেডান স্পোটিং ক্লাব বনাম উইনার্স ক্লাব।

jl

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ

সকল নিউজ সবার আগে পেতে লাইক দিন-

জনপ্রিয় পত্রিকাসমূহ