মঙ্গল. ফেব্রু ২০, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারগুলোতে প্রায় সব ধরনের সবজির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। বেশকিছু সবজি ক্রেতারা ৩০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে কিনতে পারছেন। তবে ঈদের আগে বেড়ে যাওয়া মাছের দাম এখনও বেশ চড়াই রয়েছে।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাজধানীর নিউমার্কেট কাঁচাবাজার, পলাশী বাজার, শান্তিনগর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সবজি ও মাছের বাজার প্রায় স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। প্রতিটি বাজারেই ব্যবসায়ীর সংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি পণ্যের সরবরাহ বেড়েছে।

শান্তিনগর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, মাছ ও সবজির সব দোকানই খুলেছেন ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের স্বাভাবিক সময়ের মতো দোকান খোলার বিষয়ে শান্তিনগর বাজারের ব্যবসায়ী সালাম জানান, ঈদের পর বেশকিছু দিন অধিকাংশ দোকান বন্ধ ছিল। তবে দুই-তিনদিন ধরে সবাই আছে। সবারই সংসার আছে, বসে থাকলে চলবে না। তাই ঈদ হোক আর লকডাউন হোক পেট চালাতে গেলে আমাদের দোকান খুলতেই হবে। তিনি আরও জানান, সবাই দোকান খোলায় এখন বাজারে সবজির সরবরাহ বেড়েছে। তবে সবজির চাহিদা এখনও স্বাভাবিক হয়নি। ঈদের মাংস এখনও অনেকের ঘরে রয়েছে। তাই সবজির চাহিদা এখনও কিছুটা কম। আমাদের ধারণা আগামী সপ্তাহ থেকে সবজির চাহিদা বাড়বে। সেই সঙ্গে দামও কিছুটা বাড়বে। ব্যবসায়ীদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, আগের মতো এখনও সব থেকে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে গাঁজর ও টমেটো। মানভেদে গাঁজর বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১১০ টাকা কেজি। আর পাকা টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকার মধ্যে।

এছাড়া ঝিঙে বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, চিচিঙ্গা ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পটল ২০ থেকে ৩০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ২৫ থেকে ৩০ টাকা এবং কাঁচকলার হালি বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে।

আগের মতো ঢেঁড়স পাওয়া যাচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে। বরবটি পাওয়া যাচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। এক পোয়া (২৫০ গ্রাম) কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। আলু বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা কেজি। মাছবাজারে গিয়ে দেখা যায়, স্বাভাবিক সময়ের মতো সব ধরনের মাছ পাওয়া যাচ্ছে। রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৮০ থেকে ৩৮০ টাকা কেজি, মৃগেল ২২০ থেকে ২৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা আর পাবদা বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ থেকে ৬০০ টাকা কেজিতে।

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *